1. banglargorjonbd@gmail.com : bgadminp :
সালিশকারীকে হত্যায় ৬ জনের ফাঁসি, ১০ জনের যাবজ্জীবন - Banglar Gorjon - বাংলার গর্জন
বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৯:৫৭ অপরাহ্ন
বেক্রিং নিউজঃ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়: জরুরি বৈঠকে প্রভোস্ট কমিটির পাঁচ সিদ্ধান্ত ‘কল্কি’–ঝড় থামছেই না, নতুন রেকর্ড গড়ল এ সিনেমা পিএসসির প্রশ্নপত্র ফাঁস বিদেশ ঘুরে বেড়াতেন সাখাওয়াত, গ্রামে আসতেন গাড়িতে মুকেশ আম্বানির ছেলের বিয়েতে অংশ নিচ্ছেন প্রযুক্তিজগতের যেসব তারকা প্রধানমন্ত্রীর চীন সফর: ঋণ না পেলেও ভবিষ্যতে সহযোগিতার আশ্বাস কোনো মহল শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উসকানি দিচ্ছে: ওবায়দুল কাদের আন্দোলনকারীরা এক ঘণ্টা পর শাহবাগ ছাড়লেন, যান চলাচল শুরু যে কারণে ছোট হয়ে আসছে বাংলাদেশের ইলিশ ভারতে পাচারের পর নামানো হয় যৌনকর্মে, যেভাবে দেশে ফিরছেন বাংলাদেশি তরুণী খুনের পর ভারতে পালাতে চেয়েছিলেন তাঁরা, শেষ রক্ষা হয়নি

বিজয় শপে পছন্দের পণ্য কিনুন যেকোনো সময়

সালিশকারীকে হত্যায় ৬ জনের ফাঁসি, ১০ জনের যাবজ্জীবন

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ২৮ জুন, ২০২৪
  • ৩৫ Time View
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ায় সালিশকারীকে হত্যার ঘটনায় ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড ও ১০ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বুধবার কুমিল্লার জেলা ও দায়রা জজ চতুর্থ আদালতের বিচারক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন এ রায় দেন। এসময় দণ্ডপ্রাপ্ত সকলকে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।
বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মোহাম্মদ জাকির হোসেন।
মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার ছোট ধুশিয়া মো. মাছুম (৩৫), তাজুল ইসলাম (৩২), মো. মোস্তফা (২৪), মো. কাইয়ুম (২৫) , মো. কাইয়ুম (২৮), মো. তবদল হোসেন (৪০)।
যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মো. নানু মিয়া (৪০), মতিন মিয়া (৪০), সাইদুল ইসলাম (২৪), বাবুল মিয়া (২৫), সফিকুল ইসলাম (৩৫), মো. সফিকুল ইসলাম (২৮), মোসলেম মিয়া (৪৫), মো. হেলাল মিয়া (২৫), বিল্লাল হোসেন (৩০), আবদুল আউয়াল (৩০)।
দুইজনকে খালাস দেয়া হয়। তারা হলেন- হিরণ মিয়া ও মনিরুল ইসলাম। বিচারের সময় ফুল মিয়া ও সেলিম নামের দুই আসামির মৃত্যু হলে আদালত মামলা থেকে তাদের অব্যাহতি দেয়।
আইনজীবী মোহাম্মদ জাকির হোসেন জানান, নুরুল হক হত্যা মামলার এজাহারে ২২ জন নামীয় ও অজ্ঞাত ১২ জন আসামি ছিল। পরবর্তীতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ২০ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট প্রদান করেন। মামলার বিচার চলাকালীন দুই আসামি মারা যায়। দুইজনকে খালাস প্রদান করেছেন বিচারক। রায় প্রদানের সময় আদালতের এজলাসে ১০ জন আসামি উপস্থিত ছিলেন। অপর ৬ আসামি পলাতক রয়েছেন। এ মামলায় মোট ৯ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে।
মামলার এজাহার থেকে জানা গেছে, ব্রাহ্মণপাড়া ছোট ধুশিয়া এলাকার ফরিদ মিয়ার সাথে মাছুমের দীর্ঘদিনের সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ ছিল। এ ঘটনার হাজী নুরুল হকের নেতৃত্বে কয়েকবার সালিশ হয়। সালিশে ফরিদ মিয়ার দখল করা ভিটা বাড়ি মাছুম মিয়াকে ছেড়ে দেয়ার জন্য তিনি রায় দেন। এনিয়ে মাছুমের পক্ষের লোকজন ২০১১ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি তার ওপর হামলা করেন। এ ঘটনার পর তার ছেলে মো. শরিফুল ইসলাম ব্রাহ্মণপাড়া থানায় পিতা হত্যার বিচার চেয়ে মামলা দায়ের করেন।

জয় বাংলা নিউজ (দেশ ও জাতির কন্ঠস্বর)

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

বিজয় শপে পছন্দের পণ্য কিনুন যেকোনো সময়

বিজয় শপে পছন্দের পণ্য কিনুন যেকোনো সময়

জয় বাংলা নিউজ (দেশ ও জাতির কন্ঠস্বর)

Categories

© বাংলার গর্জন কর্তৃক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত  ©
Theme Customized BY WooHostBD